¿Ves todos los idiomas arriba? Traducimos las historias de Global Voices para que los medios ciudadanos del mundo estén disponibles para todos.

Entérate más sobre Traducciones Lingua  »

Bangladesh: Titas es el nombre de un río asesinado

El río Titas [en] es un río transfronterizo del sureste de Bangladesh. La población bangladesí lo conoce enormemente gracias a una famosa novela y película titulada “Un río llamado Titas” [en] que describe la vida de los pescadores que faenan a sus orillas.

En la actualidad, el río Titas, fuente del sustento de muchas familias, corre grave peligro. En la ciudad bangladesí de Ashuganj, distrito de Brahmanbaria, se ha llevado a cabo la construcción a toda prisa de una larga carretera de desvío que cruza el río Titas, obstruyendo el paso de afluentes y canales del mismo en numerosas zonas.

Los medios de comunicación locales han informado que se realizó en aras de facilitar el transbordo de mercancias procedentes de la India sobre vehículos de gran tonelaje, ya que los puentes y carreteras existentes están dañados y no pueden soportar tan pesadas cargas. Los cibernautas están indignados con el proyecto.

Una de las carreteras que cruzan el río Titas. Imagen de Sharat Chowdhury.

Aquí puede observarse una imagen del mismo lugar tomada en el año 2008.

Mahfuzur Rahman Manik informa [bn]:

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোয় (ব্লগ, ফেসবুক) একটা ভিডিওর ব্যাপক ছড়াছড়ি। তেমন কিছু নয়, একুশে টিভিতে প্রচারিত সংবাদের ভিডিও। ‘ট্রানজিট’ নিয়ে প্রচারিত তিন পর্বের এক পর্ব। সেখানে উঠে এসেছে আখাউড়া ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সংযোগস্থলে তিতাস নদী দ্বিখণ্ডিত হওয়ার করুণ কাহিনী। ভারতকে ট্রানজিট সুবিধা দেয়ার নামে তিতাসের মাঝখানে রাস্তা বানিয়ে কীভাবে তাকে মেরে ফেলা হচ্ছে তার প্রমাণ ভিডিওটি। যারা কখনো তিতাস দেখেননি কিংবা নদী বরাবর কীভাবে রাস্তা বানানো হলো তা দেখার কৌতূহল থেকেও অনেক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী এতে ঢুঁ মেরেছেন।

Recientemente, [algunas] páginas de redes sociales (Blog, Facebook) se han visto inundadas con un video. No es nada extraordinario, solo un reportaje publicado en Ekushey TV. Es la primera de las tres partes que pueden verse en “Transit”. El vídeo es la prueba de cómo se construyó una carretera que divide el río Titas y lo aniquila a cuenta de proporcionar servicios de tránsito. Una gran cantidad de cibernautas ven el vídeo, especialmente aquellos que nunca han visto el río Titas y aquellos que simplemente tienen interés en ver cómo se construye una carretera que divide un río.

একুশে টেলিভিশন প্রচারিত সংবাদটি বলছে, তিতাস নদীর ওপর বাঁধ দেয়ায় চারপাশের লাখ লাখ হেক্টর জমিতে ফসল উত্পাদনের ওপর বিশাল প্রভাব পড়ছে। এ নদীর ওপর নির্ভর করে যারা জীবিকা নির্বাহ করেন, তাদের জীবনে এসেছে অনিশ্চয়তা। বিশেষ করে জেলেদের অবস্থা খারাপ। সেখানকার মানুষ ঘরে ফসল তুলতে পারেন না। হাজার হাজার হেক্টর জমি তলিয়ে গেছে পানিতে। পরিবেশ বিপর্যয় তো রয়েছেই।

El informe de Ekushey TV expone que los cultivos de las miles de hectáreas circundantes ya se han visto afectados. Quienes dependen de este río para su sustento se enfrentan a un futuro incierto. En especial, el futuro de los pescadores está condenado al fracaso. Miles de hectáreas de tierra cultivada han sufrido inundaciones y gran parte de los cultivos se han visto afectados. El daño medioambiental es enorme.

El bloguero Kallol Mostafa se apersonó en el lugar e informó [bn]:

ভারতের ত্রিপুরার পালাটানায় ৭২৬ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি বিদ্যুৎ প্রকল্পের প্রয়োজনীয় ভারী যন্ত্রপাতি ৯৬টি ওভার ডাইমেন্সনাল কার্গো’র (ওডিসি) মাধ্যমে পরিবহনের জন্য ৩০ নভেম্বর ২০১০ এ ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। [..] আশুগঞ্জ বন্দর আর আশুগঞ্জ থেকে আখাউড়া সড়ক পথ ওডিসি পরিবহনের অনুপযুক্ত হওয়ায় বন্দর উন্নয়ন, ৪৯ কিমি রাস্তা মেরামত ও ১৮ মিটার পর্যন্ত প্রশস্ত করার জন্য ভারত এককালীন ২৫.৫০ কোটি টাকা প্রদান করবে বলে ঠিক হয়। [..] এই রাস্তায় তিতাস নদী ও বিভিন্ন খালের উপর যেসব ব্রীজ ও কালভার্ট রয়েছে সেগুলো এত ভারী কার্গোর ভার বহনের সক্ষম নয়। তাই রাস্তা মেরামত ও প্রশস্ত করণের পাশাপাশি ভারতের আসাম বেঙ্গল কেরিয়ার বা এবিসি ইন্ডিয়াকে দ্বায়িত্ব দেয়া হলো ব্রীজ ও কালভার্টগুলোর পাশ দিয়ে “বিকল্প রাস্তা” তৈরী করার।

El 30 de noviembre de 2011 se firmó un Memorando de Entendimiento [en] con la intención de proporcionar servicios de tránsito a 96 cargueros de gran tonelaje (ODC por sus siglas en inglés) que transportarán maquinaria pesada para una central eléctrica de 726 megavatios en Tripura, la India. [..] Se decidió que la India pagará 255 millones de takas bangladesíes para mejorar 49 km de carretera aumentando su anchura en 18 metros. No obstante, los puentes y el alcantarillado de las vías no pueden soportar las cargas tan pesadas de los ODC, de manera que, además de mejorar la carretera, se le dio a la empresa Asam Bengal Carrier (ABC) el contrato para construir carreteras alternativas cerca de dichos puentes y alcantarillas.

Carretera provisional cerca de una alcantarilla en un canal del río Titas. Imagen de Niloy Das. Cortesía del blog Dinmojur.

El artículo en su totalidad [en] ha sido compartido muchas veces desde las redes sociales. Kallol también comparte [bn] su frustración y enfado:

দুনিয়ার আর কোন দেশের শাসক শ্রেণী এইভাবে নিজ দেশের নদী-খালের মাঝখান দিয়ে বাধ নির্মাণ করে আরেক দেশের মালামাল পরিবহনের ব্যবস্থা করেছে বলে আমাদের জানা নাই।

No conozco ningún otro país que haya desviado el curso de sus ríos y canales con presas y, en su lugar, haya construido carreteras para facilitar el tránsito de la mercancia de un país vecino.

Algunos blogueros tomaron la iniciativa de apersonarse en el lugar. Se creó un evento en Facebook [bn].

Kowshik [bn] comparte el alcance que tuvo la visita:

আমাদের রাজনীতি নেই, আমরা রাজনীতি বুঝি না – কিন্তু সব গেলো সব গেলো বলে আহাজারি করতে পারি! সেই আহাজারীর মাত্রা আরেকটু বাড়াতে আগামী ৩০শে ডিসেম্বর তিতাসের খণ্ডিত বুকে গিয়ে জানতে চাই সেখানকার মানুষদের কি মতামত!

No tenemos ninguna intención política, no sabemos de política, pero sí podemos llorar nuestra pérdida. Para hacer que nuestro llanto alcance otros niveles, queremos ir a ver el Titas dividido y preguntar la opinión de las personas del lugar.

Kowshik también ofreció actualizaciones frecuentes [bn] sobre las iniciativas de los blogueros.

Aquí puede verse un vídeo de tres partes donde se muestran las entrevistas entre blogueros y residentes locales:

(1ª parte: Con Ali Asif Galib [bn])

(2ª parte: Con Sharat Chowdhury [bn])

(3ª parte: Con Ali Mahmed [bn])

Desde su blog, Sharat Chowdhury [bn] habla de la experiencia de estar en el lugar:

আমরা দেখি নদীর বুক চিড়ে রাস্তা বানানো হয়েছে। ট্রানজিটের রাস্তা। আমাদের নতজানুতার পথ। এই পথ দেখে আমাদের কষ্ট হয়, ঘৃণা হয়, অবিশ্বাস গাঢ় হয় সরকারের বিবেচনা বোধ আর সদিচ্ছার প্রতি।

Vemos que las carreteras se han construido dividiendo el río. Las carreteras del tránsito, las carreteras de nuestra sumisión. Nos duele en el alma ver las carreteras, y nos negamos. Se agrava nuestra desconfianza en el Gobierno.

Además añade:

এই মুহুর্তে প্রতিবাদ প্রতিরোধ ছাড়া আর কোন পথ নেই। ব্লগাররা কাজ করতে পারেন স্থানীয় অপনিয়ন লিডার হিসেবে। কেবল রাজধানী-কেন্দ্রীক আন্দোলনের বদলে আমরা এমনও দেখতে পারি যে ব্রাম্মণবাড়ীয়া, আশুগঞ্জের ব্লগাররা প্রতিবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসনকে। অবহিত করেছেন স্থানীয় মানুষদের। সংগঠিত করেছেন। এটা আমাদের করতেই হবে।

Ya no nos queda nada más que protestar en contra de la construcción de la carretera. No solo queremos ver protestas en la capital, sino que también queremos ver que los blogueros a nivel local protesten igualmente contra el Gobierno. Queremos ver que se organizan a nivel local y concientizen a las personas de la zona. Tenemos que hacerlo.

Inicie la conversación

Autores, por favor Conectarse »

Guías

  • Por favor trate a los demás con respeto. Comentarios conteniendo ofensas, obscenidades y ataque personales no serán aprobados.