¿Ves todos los idiomas arriba? Traducimos las historias de Global Voices para que los medios ciudadanos del mundo estén disponibles para todos.

Entérate más sobre Traducciones Lingua  »

Bangladesh: La llamada perdida – ¿herramienta de protesta?

Una llamada perdida intencionalmente es un método ampliamente usado en países en desarrollo, particularmente en el sur de Asia, Filipinas y grandes partes de África, de ahorrar dinero o crédito del celular. Es esencialmente el mensaje de texto del hombre pobre [en], una manera gratuita de dar aviso a otra persona. Incluso hay una aplicación disponible para completar una llamada perdida con un toque.

Un informe [en] sugiere, que las llamadas perdidas, a cualquier hora, pueden llegar a constituir hasta el 70% del tráfico total de la red para Grameenphone, la mayor red operadora de teléfonos en Bangladesh. Los operadores de celulares en Bangladesh han reducido las tarifas hasta en 90% en la última década para que más clientes hablen y generen ganancias en economías de escala. Pero el precio de Internet móvil no se ha reducido.

Imagen de Kahil. CC BY-NC-ND.

Ahora parece que puede haber otros usos para las llamadas perdidas. En India, algunos han establecido negocios basándose en las llamadas perdidas [en] y en Bangladesh se está proponiendo usarlas como herramienta de protesta. Dos usuarios bangladesíes de Facebook, Sedative Hypnotics [en] y Duurzodhon [bn] han creado un evento en Facebook [bn] titulado “Llamada perdida: herramienta para nuestras protestas”. Ambos han ofrecido los antecedentes de las protestas en un extenso post:

২০০৬ সালে যখন বাংলাদেশ যুক্ত হলো এর SEA-ME-WE-4 কেবলে ব্যান্ডউইডথের দামও তখন ছিলো অবিশ্বাস্য রকমের বেশী – প্রতি মেগাবিট ব্যান্ডউইডথের দাম ছিলো ৮০০০০ হাজার টাকা,ইন্টারনেট তখনো তরুনদের হাতে সহজলভ্য হয় নি, গনমানুষের কাছেও না। ২০০৮ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতি মেগাবিট ব্যান্ডউইডথের দাম কমিয়ে দেন ২৭০০০ টাকায় । এর পরপরই ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের’ প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় আসে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার। ইন্টারনেট সার্ভিস তৃনমূল পর্যায়ে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যাশায় তারা এক এক ধাপে ব্যান্ডউইডথের দাম কমানো শুরু করে। ২৭০০০ টাকা থেকে তারা ২০০৯ সালে প্রতি মেগাবিট ব্যান্ডউইডথের দাম কমিয়ে আনে ১৮০০০ টাকায়, পরবর্তীতে ২০১২ সালে আবারো কমিয়ে আনে ৮০০০ টাকায়। একইসাথে পরবর্তীতে প্রতি মেগাবিট ব্যান্ডউইডথের দাম ৮০০০ থেকে ৫০০০ টাকায় নামিয়ে আনার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে BTRC

En 2006, cuando Bangladesh se conectó al cable SEA-ME-WE-4, el precio del ancho de banda era excesivo -por Mbit/s de ancho de banda eran BDT 80,000 (aproximadamente USD 1,125). Internet no estaba disponible a las masas en ese momento, sobre todo para la juventud. En 2008, el gobierno redujo el precio a BDT 27000. Luego de eso, el gobierno de la Liga Awami llegó al poder con su lema “Bangladesh Digital”. Empezaron a reducir el costo del ancho de banda en varios pasos para ponerla a disposición de la población de base. En 2009, per Mbit/s se redujo a BDT 18,000 (aproximadamente USD 250) y en 2012 se redujko aun más a BDT 8000 (USD 100). La Comisión Regulatoria de Telecomuniaciones de Bangladesh (BTRC), el ente regulador, tiene planes de reducir el precio de 1 Mbit/s a BDT 5000 (USD 60) pronto.

Se preguntan si los consumidores se están beneficiando de estos recortes en los precios:

আপনাদের মনে থাকার কথা, ২০০৬ সালে EDGE সার্ভিস চালু করা গ্রামীনফোনের ইন্টারনেট খরচ এখনো সেই আগেরমতই আছে । ২০০৯ সালের ১ জিবি ইন্টারনেটের প্যাকেজের দাম এখনো ৩৫০ টাকাই আছে ।এর মাঝে সরকার ঠিকই দুই দফায় দাম কমালেও তারা কমায় নি । একই কথা খাটে বাংলালিংক,এয়ারটেল,রবি সহ অন্যান্য অপারেটরদের ক্ষেত্রেও । [..] আপনারা খেয়াল করুন, প্রতি ১০ মেগাবাইট ইন্টারনেটের প্যাকেজ এয়ারটেলের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ১০ টাকা (ভ্যাট ছাড়া)পড়বে , অথচ একই কোম্পানী ভারতে (টুজি নেটওয়ার্কে) ১০ রুপীতে (বাংলাদেশী ১৪.৮০ পয়সা) ১২৫ মেগাবাইট ইন্টারনেট দিচ্ছে ! [..]এভাবেই সরকার দাম কমিয়ে গেলেও আমজনতা কোনো রেহাই তো পাচ্ছেই না, বরঙ অন্য দেশের তুলনায় আমাদের কাছ থেকে দামও বেশী রাখা হচ্ছে

Si pueden recordar, GrameenPhone presentó su paquete EDGE en 2006 y el precio permaneció sin variación. Su paquete de Internet de 1GB de volumen compartido sigue estando a BDT 350 (unos US$4.40). El gobierno ha reducido el precio dos veces, pero su precio no ha cambiado un centavo. Lo mismo ocurre con Banglalink, Rabi, Airtel y otros operadores. […] El paquete de volumen de Internet de 10MB de Airtel está a BDT 10 (US$0.13) en Bangladesh. Pero la misma empresa ofrece 125 MB en India a INR 10 (BDT 15; US$018). […] De esta manera, los recortes de precio del gobierno no tuvieron efecto en los consumidores a los que se está cobrando en exceso, comparado con países vecinos.

Estudiante de la Universidad de Dhaka frente a un enorme muro pintado de Comunismo habla por celular. Imagen de Firoz Ahmed. Derechos reservados Demotix (15/5/2012).

¿Cómo funciona este método de protesta con llamadas perdidas?

নির্দিষ্ট একটি তারিখে নির্দিষ্ট সময়ে আমরা সবাই মোবাইল অপারেটরদের নেটওয়ার্ক ব্যস্ত রাখবো , কিন্তু এক পয়সাও খরচ করবো না ।
আর সেই উপায় হলো মিসড কল । একটি নির্দিষ্ট তারিখে পিক আওয়ারে আমরা সবাই যদি গনহারে পরিচিতজনদের মিসড কল দেয়া শুরু করি , তবে মোবাইল অপারেটরদের বি টি এস ব্যস্ত থাকবে ঠিকই, কিন্তু যেহেতু আমাদের কারও কোনো খরচ করতে হচ্ছে না, তাই আমাদের কোনো ক্ষতি হবে না । যা ক্ষতি হবার হবে কোম্পানীর,কারন সেই সময় আমরা তাদের নেটয়ার্ক ব্যবহার করেছি ঠিকই কিন্তু কোন টাকা দিচ্ছিনা! আমরা অনেক মানুষ যদি একত্রিত হতে পারি,তবে কোম্পানীর ক্ষতিটা নেহায়েত কম না ।

Tendremos ocupadas todas las redes móviles en una hora y fecha específicas, sin gastar un centavo. Y la manera más fácil es usar la “llamada perdida”. Si empezamos a enviar llamadas perdidas a nuestros contactos a una hora específica, entonces las estaciones base de los operadores móviles estarán ocupadas. Como no pagamos nada, no tenemos nada que perder. La empresa perderá pues estamos usando su red sin ningún ingreso. Si mucha gente puede hacerlo a la misma vez, la empresa sentirá el impacto.

El evento en Facebook [en] se ha vuelto viral, más de 140,000 personas ya han sido invitadas, y aproximadamente 15000 personas han dicho que si. Según una actualización de Duurjodhon [bn]:

শুধু ইন্টারনেটের দাম কমানোই নয় , আমরা বিভিন্ন অপারেটর কর্তৃক সকালে বা গভীর রাতে ইচ্ছেমত পাঠানো স্প্যাম মেসেজের বিরোধিতাও করি ।

No [estamos] solamente reduciendo el precio de Internet móvil, estamos protestando también por el envío de mensajes de texto spam de los operadores, incluso después de medianoche.

El bloguero Robin [bn] apoya la causa y tiene más innovación:

আমার সাথে অনেক বন্ধু বান্ধব আছে যাদের মোবাইল ফোন দুই বা ততোধিক… আমার অবশ্য দুইটা ফোনসেট [..]

ভাবতেছি, দুইটাই সাইলেন্ট কইরে একটা থেকে আরেকটায় অটোমেটিক রি-ডায়াল দিয়া থুইয়া দেব… [..]

Tengo muchos amigos que tienen dos o más teléfonos celulares. Por cierto, yo tengo dos equipos. [..] Estoy pensando que tendré a los dos en silencio y haciendo que ambos se llamen entre sí usando auto remarcado… [..]

Rasel Parvez [bn] escribe en Facebook:

অহিংস ক্ষতিসাধনের আইডিয়াটা চমৎকার নিঃসন্দেহে, যদিও একই সাথে এইসব অদ্ভুত আন্দোলন ধারণা কৌতুককর অনুভুতি তৈরি করে

বিনোদন বিলাসিতা না কি প্রয়োজনীয় কর্মকান্ড এটা নিয়ে অনেক মাত্রার বিতর্ক হতে পারে, যদি আন্দোলনকারীরা মিস্কল মিসকল না খেলে বরং সরাসরি মোবাইলে ইন্টারনেট বন্ধ করার হুমকি দিতো এবং সেটা ব্যপক পরিসরে ছড়িয়ে দিতো আন্দোলন আরও সফল হওয়ার সম্ভবনা থাকতো।

আমাদের ভোক্তা অধিকারসংরক্ষণের একটি সংগঠন আছে, তারা যদি মোবাইল কোম্পানীর পরিচলন ব্যয় এবং ভোক্তার প্রদত্ত মূল্যের তুলনামূলক আলোচনা করে ভোক্তা অধিকার আইনে একটা রীট দায়ের করতো কিংবা যদি সরকারকে এ ডাকাতি সম্পর্কে অবহিত করতো সেটা আরও ফলদায়ক হতে পারতো

La idea de perjudicar sin violencia es innovadora, aun si este tipo de ideas raras cause risa.

Que usar Internet en el teléfono celular es un lujo o una necesidad es muy debatible. Si los manifestantes pueden evitar ese juego de la llamada perdida y más bien amenazaran con dejar de usar Internet móvil y hacer una campaña mayor, entonces tendrían más éxito.

Tenemos una organización de derechos del consumidor, podría comparar los costos operativos de Internet móvil y el precio de los consumidores finales y tomar medidas legales contra los operadores, si fuera necesario. Hasta podrían presentar evidencias de mala prácticas al gobierno.

Según la página del evento:

আপনারা রবিবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত কোন কল রিসিভ করবেন না। আপনাদের এতটুকু আত্মত্যাগ আমাদের সবার স্বপ্ন পূরন আর দাবি আদায়ের হাতিয়ার হবে। তাই সবাই ৩ ঘন্টা সময় দিন।

এত দিনের অনাচারের বিরুদ্ধে তিন ঘন্টার প্রতিবাদ কি খুব বেশী ?

Por favor, no recibas llamadas en tu celular entre las 10am y la 1 pm el próximo domingo. Tu sacrificio nos ayudará a lograr nuestro objetivo y hacer que nuestros sueños se hagan realidad. Por favor, danos tres horas.

¿Son tres horas demasiado para protestar contra la injusticia que ocurre desde hace años?

Inicie la conversación

Autores, por favor Conectarse »

Guías

  • Por favor trate a los demás con respeto. Comentarios conteniendo ofensas, obscenidades y ataque personales no serán aprobados.