¿Ves todos los idiomas arriba? Traducimos las historias de Global Voices para que los medios ciudadanos del mundo estén disponibles para todos.

Entérate más sobre Traducciones Lingua  »

Encerrados en Cachemira: La visión de una viajera

Lago Dal en Srinagar, Cachemira. Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

La bangladesí Fatima Jahan vive en Bangalore, India. Viajar es una de sus pasiones, y uno de sus lugares favoritos para visitar es Cachemira, a la que describe como un “paraíso en la Tierra”; ha visitado la región siete veces.

Este año, después de haber hecho los preparativos del viaje a Cachemira, la situación política cambió drásticamente: el 5 de agosto, el Gobierno de India revocó el artículo 370, la sección de la Constitución india que ha otorgado autonomía al estado de Jammu y Cachemira desde 1950. Las autoridades indias pusieron a cientos de líderes políticos y a sus ayudantes bajo arresto domiciliario, y suspendieron el acceso a redes móviles, fijas y de Internet.

El vuelo de Fatima estaba programado para la tercera semana de agosto. Para entonces, las autoridades habían comenzado a suavizar algunas restricciones y a levantar lentamente los toques de queda, aunque todavía existían algunos controles. No obstante, Fatima decidió emprender el viaje a la región, donde permaneció unos días antes de regresar a Bangalore. Publicó algunas experiencias en una serie de publicaciones en Facebook que se muestran a continuación.

La vida es incierta y los momentos se congelan cuando se declara el toque de queda. Lago Dal, Srinagar, Cachemira. Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

A continuación, algunas partes seleccionadas de sus dos primeros días de experiencia.

20 de agosto de 2019: Llegada

সপ্তম বারের মত কাশ্মীরে এসেছি।

… প্লেন থেকে নেমে দেখি বাইরে সব থমথমে। এয়ারপোর্টের কোন দোকান খোলা নেই। আমি কোন অফিসারের দিকে ভয়ে তাকাচ্ছিলাম না। তাকানোর অপরাধে যদি ফেরত পাঠায়, এসেছি বেশ কৌশল করে।

লাগেজ বেল্টে লাগেজ পাওয়ার সাথে সাথে বেরিয়ে পড়লাম। পুরো ফ্লাইটের যাত্রীর মধ্যে আমি একমাত্র ট্যুরিস্ট বা বাইরের লোক।

Esta es mi séptima visita a Cachemira.

…Me bajo del avión y afuera noto un silencio siniestro. Ninguna tienda del aeropuerto está abierta. No miro a los oficiales a los ojos por temor a que lo tomen como una ofensa y me envíen de vuelta.

En cuanto recojo mi equipaje de la cinta transportadora, salgo del aeropuerto. Resulta que yo era la única turista del vuelo.

Esta era una calle concurrida con mucho tráfico. Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

20 de agosto de 2019: Cachemira en tiempos de toque de queda

শ্রীনগর এয়ারপোর্ট থেকে বের হয়ে প্রিপেইড ট্যাক্সি স্ট্যান্ড থেকে ট্যক্সি নিলাম। বের হয়ে দেখি শহর থমথমে। এখন বাজে সকাল সাড়ে সাতটা, বাইরের তাপমাত্রা ১৩° সেলসিয়াস। পরশু কারফিউ তুলে দেয়া হয়েছে। কোন দোকানপাট খোলা নেই। স্থানীয় মানুষজন দু’ একজন বেরিয়েছে বাজার করার জন্য। কেউ গাড়ি বের করেনি। হেঁটেই চলাফেরা করছেন, ২/১ জন মহিলাকে দেখলাম হেঁটে বাজারে যাচ্ছেন। ট্যাক্সিচালক এজাজ ভাই বললেন আমাকে পৌঁছে দিয়ে তিনি বাড়ি চলে যাবেন। দিন চালানোর জন্য একজন প্যাসেঞ্জারই যথেস্ট এখন।

Al salir del aeropuerto de Srinagar, tomo un taxi desde la parada de taxis de prepago. Mientras nos dirigimos lentamente hacia la ciudad, soy testigo del mismo silencio siniestro. Son las 7:30 de la mañana y la temperatura exterior es de 13ºC. Las autoridades levantaron el toque de queda anteayer, pero ninguna tienda está abierta. Algunos lugareños han salido a comprar. Están caminando; pocas personas han venido en sus autos. Hay incluso dos o tres mujeres yendo al mercado. El taxista, Ejaz Bhai, me dice que se irá directo a casa después de dejarme. Un pasajero al día es suficiente en esta situación.

এজাজ ভাই বললেন কোন অপরাধে আর্মি ধরে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে সে ভয়ে কেউ ঘরের বাইরে থাকেনা। দোকানপাট বন্ধ তাই খুব হিসেব করে আগের করা বাজার খরচ করতে হচ্ছে, পরে অবস্থা কি হয়, কিভাবে সংসার চলবে কে জানে!

এজাজ ভাই আরো জানালেন এখানকার সব হোটেলে পুলিশ সিল করে দিয়েছে। গেস্ট রেজিস্ট্রার বইয়ে আগস্ট ৫ এ লিখে দেয়া হয়েছে এরপর আর কোন গেস্ট রেজিস্ট্রার হবেনা।

রাস্তা ভরে গেছে আর্মিতে। এত আর্মি আগে একসাথে দেখিনি। প্রতি তিন মিটার দূরত্বে একজন আর্মি পারসন দাঁড়িয়ে আছেন পাহারায়।

আমি যাব হোসেন আঙ্কেলের হাউসবোটে। আমাকে ডাল গেট নং ৭ এ এজাজ ভাই নামিয়ে চলে গেল। শিকারা নিয়ে পৌঁছালাম হাউসবোট, হোসেন আঙ্কেলের হাউসবোট আর বাড়ি।

Según Ejaj Bhai, nadie sale de casa a menos que sea absolutamente necesario, ya que temen que el Ejército pueda arrestarlos con cualquier pretexto. La mayoría de tiendas sigue cerrada, así que la gente está agotando sus existencias de comida. ¿Quién sabe qué pasará mañana?

Ejaz Bhai también me contó que la policía ha cerrado todos los hoteles. El 5 de agosto, marcaron en los registros de huéspedes de los hoteles que no se permitiría la entrada a más huéspedes.

Hay mucho personal de seguridad armado en las carreteras. Aproximadamente cada tres metros un oficial del ejército hace guardia.

Voy a la casa flotante del tío Hussain (lo conozco desde hace algunos años). Ejaz Bhai me deja en la entrada nº7 del lago Dal y tomo una shikara hasta la casa flotante, que también es la casa del tío Hussain.

Los barcos shikara tienen capacidad para seis personas. Al igual que las góndolas venecianas, son un icono del lago Dal de Cachemira. Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

AFSA ১৯৯০ সাল থেকে চালু আছে। আর্মির হাতে সমস্ত ক্ষমতা অর্পন করা হয়েছে। আর্মি যে কাউকে তুলে নিয়ে যেতে পারে, সিভিলিয়ান বা মিলিট্যান্ট যে কাউকে গুম বা হত্যার জন্য আর্মিকে কোন জবাবদিহি করতে হয়না এই ধারার কারনে ।

…হাজার হাজার মানুষের গনকবর আছে এখানে বারামোল্লা, উডি এসব জায়গায়। যুবকদের তুলে নিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে মিলিট্যান্ট সন্দেহে। গ্রামের পর গ্রাম উজাড় করে দেয়া হয়েছে এভাবে।

৫ আগস্ট, ২০১৯ থেকে নাকি অনেক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে, যার কোন খবর জানা যাচ্ছেনা।

পরশু কারফিউ তুলে নেবার পর এখানকার মানুষ নিজেরাই কারফিউ দিয়েছে, যাকে বলে সিভিল কারফিউ । কেউ দোকান খোলেনি, কেউ কোথাও কাজ করছেনা। ৩৭০ ধারা তুলে নেবার যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তার বিরোধিতা করে।

La Ley de Facultades Especiales de las Fuerzas Armadas (AFSPA) ha estado vigente desde 1990. El Ejército tiene todo el poder. La ley le permite detener a cualquier persona, civil o militante, y no tiene que rendir cuentas si la persona aparece muerta o desaparece.

…Existen fosas comunes de miles de personas en los distritos de Uri y Baramulla. Se afirma que presuntos militantes fueron detenidos y terminaron en esas tumbas. Esta es la historia en muchas aldeas del valle de Cachemira.

Después del 5 de agosto, muchos jóvenes han sido arrestados y nadie sabe dónde están.

Aunque [el Gobierno] ha levantado el toque de queda, la gente aquí se ha impuesto su propio toque de queda civil. Nadie abre sus tiendas, nadie en ninguna parte está trabajando. Todo esto es una protesta por la decisión tomada de revocar el artículo 370.

Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

PSA ধারা ১৯৭৮ সাল থেকে কার্যকর করা হয়েছে। এর কারনে কোন ধরনের মিটিং, মিছিল নিষিদ্ধ কাশ্মীরে। তবে মিছিল বের হয় এবং ধরপাকড়ও হয়।

এবারের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ, টেলিফোন, ইন্টারনেট লাইন বন্ধ। বাইরের জগতের সাথে কোন যোগাযোগ নেই।

এবার কারফিউ এর আগে পুলিশের কাছ থেকে পাওয়ার নিয়ে নেয়া হয়েছে, পুলিশের অস্ত্র জমা নিয়ে রেখে দেয়া হয়েছে। এয়ারপোর্ট থেকে আসার পথে কোন পুলিশ তো দেখলামও না।

La Ley de Seguridad Pública [PSA] ha estado vigente desde 1978. Esta prohibido cualquier tipo de reunión o procesión en Cachemira. Sin embargo, la gente sale a protestar y se producen detenciones masivas.

Esta vez es peor. Las líneas de teléfono e internet no funcionan y no hay contacto con el mundo exterior.

Antes del toque de queda, el Ejército le había arrebatado el poder a la policía y le había quitado las armas. No vi a ningún policía de camino a la ciudad desde el aeropuerto.

বেশিরভাগ রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেফতার করে দিল্লী, আগ্রার জেলে পাঠানো হয়েছে। শোনা গেছে কাশ্মীর আর জম্মুর সব জেল নাকি ভরে গিয়েছে। অবশ্য তা শোনা কথা।

কারফিউ শিথিল করার পর থেকে কেউ গাড়ি বের করছেননা কারন পেট্রোল পাওয়া যাচ্ছেনা তাই। বাস চলছেনা।

বিকেলে হোসেন আঙ্কেলকে বললাম লেকপাড়ে যাব শহরের পরিস্থিতি দেখতে। আঙ্কেল মানা করলেন। বললেন, ‘কাল যেও। আজ শহর মোটেই ঠান্ডা নয়।’

[Las autoridades] han arrestado a muchos líderes políticos y los han enviado a cárceles en Delhi y Agra. Se rumorea que las cárceles de Cachemira y Jammu ya están llenas.

Incluso sin el toque de queda en vigor, nadie está usando su auto porque no hay gasolina disponible. Los autobuses tampoco funcionan.

Por la tarde, le pido al tío Hussain que me lleve a la orilla del lago para ver la situación en la ciudad. Sugiere que mejor vaya mañana: “Hoy hay problemas en la ciudad”.

21 de agosto: Día dos

কাশ্মীরে কারফিউ চলাকালীন সময়ে আমার দ্বিতীয় দিন।

ব্যক্তিগত জীবনে কোন কাজের তাড়া নেই। আর কারফিউ এর কারণে কোথাও যাবারও প্ল্যান নেই। হুসেন আঙ্কেলের দু'টো হাউসবোটের একটিতে নিজেরা থাকেন আর আরেকটি রেখেছেন ট্যুরিস্টদের জন্য। আমি এখন আছি ট্যুরিস্টদের বিশাল হাউসবোটে একা। সব ধরনের ট্যুরিসম বন্ধ এখন কাশ্মীরে। […]

নাস্তা করতে করতে হুসেন আঙ্কেলের ছেলে শেহজাদের সাথে কথা হচ্ছিল। গতকাল নাকি শালিমার গার্ডেনের দিকে মিছিল বের হয়েছিল। পরের খবর কেউ জানেনা। কতজন গ্রেফতার, আহত, নিহতের সংখ্যা জানার উপায় নেই। টেলিফোন, ইন্টারনেট বন্ধ।

Mi segundo día en Cachemira.

Personalmente, no tengo prisa. Debido a la situación, no tengo planes de ir a ninguna parte. El tío Hussain vive en una de sus dos casas flotantes y tiene la otra para los turistas, así que ahora estoy sola en una casa flotante enorme. Todos los recorridos están cerrados en Cachemira…

Hablo con su hijo Shehzad durante el desayuno. Ayer hubo una manifestación en Shalimar Gardens. Nadie sabe qué pasó después. No hay forma de saber cuántos fueron arrestados, heridos o asesinados. Todavía no hay teléfono ni internet.

Alambre delante de los edificios del Gobierno y los puentes. Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

আগে একবার সরকার অনুমতি দিয়েছিল মিছিল করার ২০০৮ সালে, তখন নাকি সারা শহরের মানুষ পথে নেমে এসেছিল, কন্ট্রোল করা মুশকিল হয়ে গিয়েছিল। তারপর থেকে সরকার আর মিছিলের অনুমতি দেয়না।

কাশ্মীরের সাধারণ মানুষ চায় আজাদী। সেটা রাজা হরি সিং এর আমল থেকেই চাইছিল। এখনকার লিবারাল আর কনসারভেটিভ মানসিকতার ভারতীয় জনগণ কি চায় সে বিতর্কে নাই বা গেলাম। কাশ্মীর তো কাশ্মীরীদের তারা কি চায় সেটাই মূল বিষয়।

Una vez, en 2008, el Gobierno permitió que la gente se manifestara. La gente de toda la ciudad salió a las calles de Cachemira, lo que fue muy difícil de controlar. El Gobierno se volvió más inteligente y ya no se permiten las manifestaciones.

La gente común y corriente de Cachemira quiere azadi (libertad). La han querido desde el reinado del rey Hari Singh, antes de que la India se independizara. No voy a debatir lo que la masa de ciudadanos indios quiere… lo que quieren los cachemires debería ser la principal preocupación porque ellos son de este lugar.

Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

আজকে নাকি রেশন দিচ্ছে। আঙ্কেলের ছোট ছেলে জুনেয়েদ সদরে গিয়ে খবর এনেছে যে আগামীকাল থেকে রেশন দেয়া শুরু হবে। এখন রেশনে শুধু চাল দেয়। আগে আটা, চিনিও দিত।

আমি খাবারের সময় বাদ দিয়ে বাকি সময় হাউসবোটের বারান্দায় বসে থাকি। লেক থেকে জীবনযাত্রা স্বাভাবিক বলেই মনে হয়। যে যার কাজ করতে নৌকা বেয়ে যাওয়া আসা করছে। কারফিউ এর সময় এখানকার নারীদের করার কিছুই থাকেনা। এবার তো ইন্টারনেটও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। টেলিভিশন দেখা ছাড়া মনোরঞ্জনের কোন মাধ্যম এখন নেই।

Han comenzado a racionar la distribución de comida otra vez. El hijo menor del tío, Junaid, fue al centro de la ciudad y se enteró de que a partir de mañana comenzarán a distribuir las raciones. Ahora solo están entregando arroz. Antes también distribuían harina y azúcar.

Paso el resto del día sentada en el porche de la casa flotante. La vida en el lago Dal parece normal. La gente va a su trabajo habitual y a otros lugares en pequeños barcos. Durante el toque de queda, las mujeres no tienen nada que hacer, especialmente porque los servicios de telefonía móvil e internet también se han cerrado. Excepto la televisión, no hay otra opción de entretenimiento.

বিকালে আমি বের হলাম, আঙ্কেল জুনেয়েদকে আমার সাথে পাঠিয়ে দিল। তীরে নেমে হাঁটলাম শহর অবধি। বোলভার্ড রোড মানে ডাল লেক ঘেসা রাস্তাটায় শুধু অল্প কয়েকজন আর্মি দেখলাম। এরপর প্রতি ১০ মিটার পর পর একজন সেনা সদস্য দাঁড়িয়ে আছে। প্রায় সব সরকারী অফিসের সামনে কাঁটাতারের বেড়া দেয়া। আজ দেখি পথে বেশ কিছু গাড়ি, মোটর বাইক চলছে। বোলভার্ড রোডে স্থানীয় মানুষজন এসেছে ঘুরেফিরে বেড়াতে। সাধারণত বিকেলে শ্রীনগর শহর উপচে পড়ে এখানে।

পাবলিক ট্রান্সপোর্ট সব বন্ধ। শুধু জম্মু যাবার জন্য বাস স্ট্যান্ডে কয়েকটা শেয়ার ট্যাক্সি দাঁড়িয়ে রয়েছে। এখন জম্মু বাদে অন্য সব রুটের রাস্তা বন্ধ।

Por la tarde salgo y el tío envía a su hijo Junaid conmigo. Desde el barco me acerco a tierra y paseo por la orilla del lago. Veo hombres del Ejército patrullando la calle Boulevard. Después, cada 10 metros, hay un oficial del ejército de pie. Se han colocado vallas de alambre delante de casi todos los edificios públicos. Hoy he visto varios autos y motos en la calle. He visto a algunos lugareños paseando por la calle Boulevard. Normalmente, mucha gente de Srinagar viene aquí por la tarde…

El transporte público sigue cerrado. Unos pocos taxis compartidos están esperando en la parada del autobús para llevar a la gente a Jammu. Todas las carreteras, excepto las que van a Jammu, están cerradas.

Tiendas cerradas. Imagen de Fatima Jahan, usada con autorización.

রাস্তাঘাটে ছবি তোলা নিষেধ, সেনা সদস্যদের তো একেবারেই না। শুধু অল্প কয়েকজন সাংবাদিক ছবি তোলার অনুমতি পেয়েছেন। আমি একজন ভ্রামণিক। কারফিউ চলাকালীন সময়ে ভ্রমণ করতে এসেছি শুনলে সাথে সাথে পাঠিয়ে দেবে বা উগ্রবাদী সন্দেহে গ্রেফতার করবে। গ্রেফতারের পর সাধারণত সে মানুষের আর কোন খবর পাওয়া যায়না।

অনেকটা সময় বাইরে থেকে ফের নৌকা চেপে হাউসবোটে ফিরলাম। ফেরার পর হউসেন আঙ্কেল জানালেন ডাউনটাউনে নাকি টিয়ারগ্যাস ছেড়েছে। আওয়াজ শোনা গেছে।

মাগরেবের নামাজের পর মসজিদে মসজিদে সমানে দরুদ পড়া শুরু হয়েছে। দোয়া পড়া ছাড়া আর কিছু করারও নেই। ভালো বা মন্দ যে কোন শব্দ মসজিদ থেকে বের হলে মসজিদে উপস্থিত সবাইকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। আর মসজিদের ভেতর কি হচ্ছে তা জানার জন্যও সেনাবাহিনীর গুপ্তচর আছে।

সব বড় মসজিদ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে কারফিউ ঘোষণা দেবার সাথে সাথে।

Las fotos están prohibidas en la calle y hay una prohibición aún más estricta sobre fotografiar a los miembros del ejército. Solo unos pocos periodistas tienen permiso para tomar fotografías. Soy visitante y si se enteran de que he venido aquí a pesar del toque de queda, sospecho que me enviarán de vuelta inmediatamente. Incluso podrían arrestarme bajo sospechas de extremismo, y sabemos que tras un arresto, por lo general no hay más noticias del detenido.

Después de pasar un tiempo considerable en la ciudad, vuelvo a la casa flotante. El tío Hussain me cuenta que hubo problemas en el centro. Oyó el sonido de los proyectiles de gas lacrimógeno.

Después de las oraciones del Magreb vino el fuerte sonido de las oraciones de la mezquita. No hay nada más que hacer aparte de rezar. Al enterarse de que en la mezquita se pronuncian palabras, positivas o negativas, además de oraciones, el Ejército llega para arrestar a la gente. Hay Espías del ejército dentro de la mezquita escuchando lo que está pasando.

Todas las grandes mezquitas se cerraron después del anuncio del toque de queda.

Nota del editor: El Gobierno de India sigue manteniendo que la situación en Cachemira es normal. Se han vuelto a imponer restricciones en algunas partes de Cachemira.

Inicie la conversación

Autores, por favor Conectarse »

Guías

  • Por favor trate a los demás con respeto. Comentarios conteniendo ofensas, obscenidades y ataque personales no serán aprobados.